লাইসেঙ্কোর আসল ইতিহাস

-বিপ্লব  পাল 


 আমি ইমরান হাবিব রুমনের বক্তব্য পড়ে আশ্চর্য্য। উনি জানেন কি লাইসেঙ্কোর 'বৈজ্ঞানিক চিটিংবাজির' জন্যে রাশিয়া কে কি খেসারত দিতে হয়েছিল?  কতলোক দুর্ভিক্ষের সম্মুখীন হয়-স্টালিনীয় জমানায়? শুধু লাইসেঙ্কোর পথ ধরে উ
পাদন বৃদ্ধির চেষ্টায়?

প্রথমে আসা যাক লাইযেঙ্কোর 'হাত সাফাই' এর কাজে। তার গবেষনা পত্র এবং রেজাল্ট, অনেক বিজ্ঞানী  'রিপ্রোডীউস' করার চেষ্টা করেছেন-এবং সবাই একমত-পুরোটাই মিথ্যে রেজাল্ট। সোভিয়েট লিডারশিপকে  খুশী করার জন্যে।  এবং মনে রাখবে ক্যাপিটজা বা শাখারভের মতন নোবেলজয়ী বিজ্ঞানীরা ১৯৫৩ সালে তাকে  বিজ্ঞানকুলে কুলাঙ্গার ঘোষনার পরই, একমাত্র রাশিয়ার কৃষিবিজ্ঞান লাইসেঙ্কোর রাহুমুক্ত হয়।

কিন্তু তার আগে কি হয়েছে? ১৯২৯ সালের মধ্যে লাইসেঙ্কো বিরোধি যাবতীয় বিজ্ঞানকর্ম 'প্রতিবিপ্লবী' বলে ঘোষনা করা হয়! যার জন্যে অনেক প্রতিভাবান বায়োলজিস্ট  যারা লাইসেঙ্কোর কারচুপি ধরতে পেরেছিলেন-তাদের স্টালিন জেলে পাঠান (যেমন নিকোলাই ভ্যাভিলভকে অনাহারে সাইবেরিয়াতে মারা হল ১৯৪৩ সালে)। ১৯৩২ সালে স্টালিন ডিক্রি জারি করেন ওই সব 'বুর্জোয়া' তত্ত্বে কিছু হবে না  'লাইসেঙ্কোর মতন 'হাতে-নাতে' বিজ্ঞানী দরকার রাশিয়াতে! বিজ্ঞান  রাজনৈতিক দর্শন না-এর দর্শনের অস্তিত্ব ই হল, প্রচলিত তত্ত্বের ভুল ধরা।  বিজ্ঞানের মূল দর্শনকেই যখন স্টালিনের জমানা 'প্রতিবিপ্লবী' কাজ বলে আসল  বায়োজলিস্টদের জেলে পাঠানো শুরু করল-তখন ১০০ মিলিয়ান লোকের  অর্ধাহার ছাড়া আর কি বা সঙ্গী হতে পারে?

 যাইহোক আমি বিষ্মিত। কিভাবে এক লাইসেঙ্কোর মতন এক চোর (লাইসেঙ্কোকে বিজ্ঞানী বললে  বিজ্ঞানীকূলের অপমান করা হয়-এবং এটাও আমার কথা নয়। আমি শাখারভের কথাই বললাম) এবং তার ভয়ংকর খুনী দোশর  স্টালিনের সমর্থনে আজও লোক কথা বলে! কম্যুনিজম, ইসলাম, হিন্দুত্ব ইত্যাদি রাজনৈতিক দর্শনের সমর্থক লোকে হতেই পারে। কিন্তু এদের বুদ্ধিবৃত্তি এবং মানবিক  প্রবৃত্তির দেউলিয়াপনা-আমাকে আতংকিত করে।

মেরীল্যান্ড ১১/০১/০৮


. বিপ্লব পাল, আমেরিকাতে বসবাসরত পদার্থবিদ, গবেষক এবং লেখক। এক সময় ভিন্নমতের মডারেটর ছিলেন, বর্তমানে www.fosaac.tv সম্পাদনার সাথে জড়িত।